মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

পিপুলিয়া ইসলামিয়া কামিল মাদ‌রাসা, মাদরাসা

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

 

সংক্ষিপ্ত বর্ণনা:

কুমিল্লা জেলার অর্ন্তগত সদর দক্ষিণ উপজেলাধীন ২নং চৌয়ারা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের হেমজোড়া গ্রামে দিঘীর উত্তর ও পূর্ব কোনে একটি মনোরম ও দৃষ্টি নন্দন পরিবেশে মাদরাসাটি অবস্থিত। মাদরাসার উল্লেখযোগ্য দিক, পূর্ব ভিটির দ্বিতল ভবনটি অত্যাধুনিক টাইলস ফিটিংসয়ের একটি দৃষ্টিনন্দন ভবন এবং উক্ত ভবনসহ মাদরাসার চারপাশে যে দৃশ্যপট বিরাজমান তারই ধারাবাহিকতায় মাদরাসার প্রবেশপথে গেইটটি অত্যাধুনিক ডিজাইনে নির্মানাধীন।মাদরাসার মোট ২.০৯একর ভূমির অখন্ড ভূমি ১.০৯একর হেমজোড়ার মধ্যেমাদরাসার পাকা ও আধাপাকা মূল ভবন বিদ্যমান। বাকী ১.০০একর ভূমি মাদরাসার বাহিরে অনান্য মৌজায় অবস্থিত। মাদরাসাটিতে এবতেদায়ী প্রথম শ্রেণী হইতে কামিল শ্রেণী পর্যন্ত ১৬টি শ্রেণী কক্ষ, ১টি অধ্যক্ষের কার্যালয়, ১টি অফিস কক্ষ, ১টি শিক্ষক মিলনায়তন, ২কক্ষ বিশিষ্ট (৪,৭৬৭গ্রন্থের ) আলাদা ২টি গ্রন্থাগার, ১টি ষ্টোর রোম, ১টি বিজ্ঞানাগার, ১টি কম্পিউটার কক্ষ, ২টি বিজ্ঞান ক্লাস রুম , ১টি ছাত্র শিক্ষক মিলনায়তন, ৩ কক্ষ বিশিষ্ট একটি ছাত্রাবাস ও একটি মসজিদ সহ সর্বমোট ৩৩টি কক্ষ আছে। তাছাড়া আসবাবপত্র বিজ্ঞানের ব্যবহারিক যন্ত্রপাতি ও সিরামিক সহ বৈদ্যুতিক বিভিন্ন উপকরন রয়েছে। মাদরাসার পূর্ব ভিটির দ্বিতল ভবনে উত্তর ও  দক্ষিণ পাশে (উপর নীচে) ২৪টি শৌচাগার এবং দক্ষিণ ভিটির বিজ্ঞান ক্লাস রুমের পূর্ব পাশে ২টি শৌচাগারসহ ২৬টি শৌচাগার, ১টি টিউব ওয়েল, ২টি গভীর নলকূপ ২টি মোটরে সংযুক্ত ৪২টি ট্যাপ ও ৮টি বেসিন আছে। মাদরাসার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রক্ষার জন্য বিভিন্ন জাতের গাছ ও ফুলবাগান আছে। মাদরাসার চারপাশ ভবনের মধ্যবর্তী স্থানে (২১,১৩২ বর্গফুটের) ১টি খেলার মাঠ এবং ছাত্রাবাসের পশ্চিম পাশে একটি বড় দিঘী আছে। মাদরাসাটি ২৯ জন সুদক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক- শিক্ষিকা ও ৮ জন কর্মচারী দ্বারা সুন্দর ও সুচারু রুপে পরিচালিত হইয়া আসিতেছে। প্রতি বছর মাদরাসার ফলাফল উপজেলা ওয়ারী শীর্ষে ।

১৪/০৪/১৯১১ খ্রিঃ

পিপুলিয়া ইসলামিয়া কামিল মাদরাসাটি ১৪/০৪/১৯১১খ্রি: বটগ্রাম মৌজাতে - বটগ্রাম হামিদিয়া ফাজিল মাদরাসা নামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। মরহুম মাও: আ: হামিদ (র:) মাদরাসাটি তথায় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। সরকারী সিলেবাস ও ক্বাওমী নেসাবের পার্থক্যেরকারনে বটগ্রাম হামিদিয়া ফাজিল মাদরাসাটি হযরত আল্লামা মাওলানা আক্তারুজ্জামান (টঙ্গিরপাড়) এর  অক্লান্ত পরিশ্রম ও প্রচেষ্টাতে বটগ্রাম হইতে হেমজোড়া গ্রামের  দিঘীর উত্তর পূর্ব কোনে পূর্ব পাকিস্তান শিক্ষাবোর্ড , ঢাকা মোমো নং ৭৮৪৯-৫০/৮৫ তারিখ: ২৮/০৩/১৯৬৪খ্রি: মোতাবেক হেমজোড়া নামক স্থানে পিপুলিয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদরাসা মেমো নং ৪৯১৪ (৫) তারিখ: ০৩/০৩/১৯৬৫খ্রি: নামে চট্রগ্রামের বিভাগীয় কমিশনারের আদেশে স্থানান্তরিত হয়। এই জন্য মরহুম হাজী আ: করিম, মরহুম ডা: আফছার উদ্দিন, মরহুম হাজী আম্বর আলী ও হাজী ডা: শরাফত আলী দলিল নং ২২৬ তারিখ ২৫/০১/১৯৬৫খ্রি: সি.এস ২৫ দাগে ৮০শতক , সি.এস ২৬ দাগে ২০শতক মোট ১০০ শতক ভূমি দান করেন, যা বর্তমানে মাদরাসার মূল ভবন সহ খেলার মাঠ।  দলিল নং ৩৬৩৫ তারিখ ২১/০৯/১৯৮২খ্রি: তারিখে মরহুম হাজী আ: করিম, মরহুম ডা: আফছার উদ্দিন, মরহুম হাজী বশরত আলী ও মরহুম মফিজ উদ্দিন, সি.এস ২৫ ও ২৬ দাগে ৪শতক ভুমি দান করেন এবং দলিল নং ৩৬৩৬ তারিখ: ২১/০৯/১৯৮২খ্রি: তারিখে মরহুম হাজী আম্বর আলী ও মরহুম হাজী শরাফত আলী সি.এস ২৬ দাগে  ৪শতক ভূমি দান করেন। মাদরাসার গেইট ও গেইট সংলগ্ন ০১শতক ভূমি আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আ: রশিদ সাহেব পিপুলিয়া গ্রামের জনাব আসমত আলী হইতে (মৌজা পিপুলিয়া সি.এস ২৫৮, হাল দাগ ৪৩৮ দলিল নং ২২৯৯ তারিখ ১৭/০২/২০১১) ক্রয় করে দেন। মাদরাসার ১০৯শতক অখন্ড ভূমির উপর ৬টি ভবন বিদ্যমান, যার ১মটি নির্মান হয় ১৯৬৮খ্রি:, ২য়টি নির্মান হয় ১৯৭৫-৮৪খ্রি:, মাদরাসার নিজস্ব টাকায়। ৩য়টি নির্মান হয় ১৯৮৬খ্রি: সরকারী অনুদানে। ৪র্থটি নির্মান হয় ১৯৯৮খ্রি: মাদরাসার নিজস্ব টাকায় ও সরকারী অনুদানে, ৫টি (মসজিদ) নির্মান হয় ২০০১খ্রি: জনগনের দানে। ৬ষ্ঠ দ্বিতল ভবনটি ২০০৭ খ্রি: এবং মাদরাসার গেইটি ২০১১খ্রি: নির্মান হয়।

বর্তমানে মাদরাসার অখন্ড ভূমির পরিমান ১০৯ শতক এবং অন্যান্য মৌজাতে আরো ১০০ শতক ভূমি রয়েছে, যার আয় মাদরাসার কোষাগারে জমা হয়। অত:পর কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা  এর মাদরাসা পরিদর্শক এর অফিস আদেশ নং ৫০৮৫/০৫ তারিখ: ০৮/১২/১৯৯৪খ্রি: মোতাবেক ০১/০১/১৯৮৪খ্রি: হইতে দাখিল বিজ্ঞান স্তরে বিজ্ঞান খোলার অনুমতি লাভ করে এবং মাদরাসার পরিদর্শকের আদেশ নং ১৫৫১৫/০৫ তারিখ ০১/০৭/১৯৮৩খ্রি: আলিম শ্রেণীতে বিজ্ঞান খোলার অনুমতি লাভ করে। বর্তমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাংলোদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড , ঢাকা এর চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত আদেশ নং ১৯৯২/১১ নবম শ্রেণীতে ০১/০১/২০০৪খ্রি: হইতে কম্পিউটার বিষয় খোলার ও শিক্ষক নিয়োগের আদেশ লাভ করে। আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আবদুর রশিদ সাহেবের একক অর্থায়নে মাদরাসার পূর্ব ভিটির ৪তলা ফাউন্ডেশনের দ্বিতল ভবন ও মাদরাসার গেইটটি নির্মিত হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এলাকাবাসীর সচেতন মহলের গণ দাবীর মুখে গত ০৮/০১/২০০৮খ্রি: তারিখে অধ্যক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ তদন্ত টিমের প্রতিবেদন ও সুপারিশের  আলোকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়ার১২/০৮/২০০৯খ্রি: অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ২০৩তম সভায় অনুমোদনের পরিপ্রেক্ষিতে মাদরাসাটি কামিল স্নাতকোত্তর (হাদিস বিভাগে) স্তর মেমো নং ফা-কা-মাশি/ইবি-০৯/৮৮৭৪ তারিখ: ০৯/০৯/২০০৯খ্রি: অনুযায়ী ১২/০৮/২০০৯খ্রি: থেকে ১১/০৮/২০১৩ খ্রি: পর্যন্ত ০৪(চার) বছরের জন্য রেজিষ্ট্রার, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া অধিভুক্তি প্রদান করেন। মাদরাসার ১ম ব্যাচ কামিল শ্রেণীতে ২০০৯-২০১০ সেশনের ২০১০খ্রি: কামিল ১ম পর্বের পরীক্ষার্থী ২২জন।

মূলকথা মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠাকাল থেকে আরম্ভ করে ভূমি দাতা, দাতা ও এলাকাবাসীর সর্বস্তরের মানুষ - অর্থ, শ্রম, বুদ্ধি ও পরামর্শের পাশাপাশি সরকারী শিক্ষা নীতির আওতায় সকল উন্নয়ন কাজে সরকারের সহযোগিতা রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় মাদরাসার বর্তমান অবস্থাটি দৃশ্যমান।  

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মো: নজির আহমদ মজু: 0 pipuliaislamiakm@yahoo.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

১০০%

0